জোজন আরিফ

জন্ম ১৯৯৩ সালের মে মাসে, ঢাকায়। শিক্ষাজীবনের দীর্ঘ একটা সময় কেটেছে বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক কলেজে (সাবেক ‘বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ রাইফেলস পাবলিক স্কুল এ্যান্ড কলেজ’)।
কেজি থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত সেখানে অধ্যয়নরত ছিলেন। ৫ম শ্রেণিতে বৃত্তি পাওয়ার কৃতিত্ব অর্জনের পাশাপাশি এস.এস.সি ও এইচ.এস.সি পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করে উত্তীর্ণ হন। এরপর খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং’ বিভাগ থেকে প্রথম শ্রেণি পেয়ে বি.এস.সি (ইঞ্জিনিয়ারিং) সম্পন্ন করেন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহে ‘বায়োটেকনোলজি’ বিভাগে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত আছেন।
মাতৃভাষায় সহজ-সাবলীল অনুবাদের জন্য ইতিমধ্যেই অনেকের সুনাম কুড়িয়েছেন এ তরুণ। বাংলা ভাষার পাশাপাশি ইংরেজি ও আরবি ভাষাতেও তিনি সমান দক্ষ। বর্তমানে তিনি উর্দু ও ফার্সি ভাষা আয়ত্ত করার নিরলস সাধনায় আত্মনিয়োগ করেছেন। সুদূর ভবিষ্যতে তুর্কি, ফ্রেঞ্চ ও জার্মান ভাষায় দক্ষতা অর্জনের মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন ভাষার ইসলামি কিতাবসমূহ বাংলা ভাষাভাষী পাঠকদের করমকলে তুলে দেওয়ার স্বপ্ন দেখেন তিনি।
বক্ষ্যমাণ গ্রন্থটি ছাড়াও তার অনূদিত গ্রন্থাবলির মধ্যে রয়েছে : শায়খ মুহাম্মাদ সালিহ আল মুনাজ্জিদ প্রণীত ‘মুহররম ও আশুরার ফজিলত’। হিবা দাব্বাগ প্রণীত ‘জাস্ট ফাইভ মিনিটস! সিরিয়ার কারাগারে রুদ্ধশ্বাস নয় বছর’। উপরোল্লিখিত গ্রন্থাবলি ছাড়াও তিনি কালান্তর প্রকাশনী থেকে শায়খ মুহাম্মাদ সালিহ আল মুনাজ্জিদের সবগুলো গ্রন্থ অনুবাদ করার আকাক্সক্ষা পোষণ করেন। এছাড়া তার অনূদিত ড. শায়খ আলি মুহাম্মাদ সাল্লাবি প্রণীত ‘সালাহউদ্দিন আইয়ুবি’ এবং ‘খলিফাতুল মুসলিমিন উমর ইবনে আবদুল আজিজ’ দুটি গ্রন্থ খুব শীঘ্রই ‘কালান্তর প্রকাশনী’ থেকে আলোর মুখ দেখবে ইনশাআল্লাহ। আল্লাহ রাব্বুল আলামিন তার কাজে বারাকাহ দান করুন। আমিন।