কিছু পড়ে দেখুন

বারো মাসের করণীয় বর্জনীয়

লেখক:

প্রকাশক:

কালান্তর প্রকাশনী

পৃষ্ঠাসংখ্যা:

২৮৮

প্রকাশকাল:

একুশে গ্রন্থমেলা, ২০১৮

সংস্করণ:

সেপ্টেম্বর-২০২১

রেটিং:

৳ 260

আল্লাহ তাআলা অনুগ্রহ করে বিশেষ কিছু দিবস এবং রজনীকে আমাদের জন্য সম্মানিত করে দিয়েছেন, যে দিবস বা রজনীর মর্যাদা আল্লাহ তায়ালার নিকট অন্যান্য দিবস এবং রজনী থেকে অনেক বেশি। যেমন- শবেকদর হাজার মাস থেকে উত্তম। আরাফার দিনের রোযা পূর্বের এবং পরের দুই বছরের গোনাহের (সগিরা) কাফফারা হয়ে যায়।
কিছু মাসের বিশেষ আমল যেমনভাবে সহিহ হাদিস দ্বারা প্রমাণিত, ঠিক তেমনিভাবে আমাদের সমাজে কিছু কিছু মাসে এমন বহু আমল প্রচলিত আছে-যেগুলো সম্পূর্ণ বানোয়াট। কুরআন-হাদিসের সাথে যেগুলোর কোনো সম্পর্ক নেই। বিশেষ কোনো মাস বা দিনের কোন ফযিলত সহিহ হাদিস দ্বারা প্রমাণিত, কোনটা প্রমাণিত নয়; এ বই আপনাকে সে সম্পর্কে পথপ্রদর্শন করবে ইনশাআল্লাহ। এ বিষয়ে লিখিত অন্যান্য বইয়ের তুলনায় এটি সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম। বইটিতে প্রত্যেকটি আয়াত, হাদিস, আছার-এর রেফারেন্স উল্লেখ করা হয়েছে। হাদিস নিয়ে পর্যালোচনা করা হয়েছে।
আমাদের দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ‘মকসুদুল মুমিনীন’ ‘বারো চান্দের ফযিলত’সহ আরো কিছু অনির্ভরযোগ্য কিতাব বাজারে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে। সেগুলোতে বারো মাসের এমন বহু মনগড়া আমল উল্লেখ করা হয়েছে, কুরআন হাদিসের সাথে যেগুলোর কোনো সম্পর্ক নেই। বহু মনগড়া আমল দীর্ঘদিন থেকে আমাদের দেশে লোকজন করে আসছে। আমাদের ছোটবেলায় দেখতাম, শবেবরাতে গ্রামের অধিকাংশ ঘরে শিরনি, হালুয়া, রুটি ইত্যাদি বানানো হতো। অথচ শবেবরাতে শিরনি বানানোর কথা সহিহ হাদিসে থাকা দূরের কথা, কোনো দুর্বল হাদিসেও নেই!

লেখক:

প্রকাশক:

কালান্তর প্রকাশনী

পৃষ্ঠাসংখ্যা:

২৮৮

প্রকাশকাল:

একুশে গ্রন্থমেলা, ২০১৮

সংস্করণ:

সেপ্টেম্বর-২০২১

রেটিং:

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “বারো মাসের করণীয় বর্জনীয়”

Your email address will not be published.