ড. মুহাম্মদ ইবনে আবদুর রহমান আরিফি

বর্তমান আরব জাহানের বিশিষ্ট দাঈ ডক্টর মুহাম্মদ ইবনে আবদুর রহমান আরিফি। খুব কম বয়সেই তিনি বক্তৃতা ও লেখার মাধ্যমে আরব-অনারব সর্বত্র সাড়া ফেলে দিয়েছেন। পশ্চিমা দুনিয়ায়ও তিনি এখন এক নামে পরিচিত।
ডক্টর আরিফির জন্ম ১৯৭০ সালের ১৬ জুলাই। বংশ পরিচয়ে তিনি ইসলামের বিখ্যাত সেনাপতি খালিদ ইবনুল ওয়ালিদ রাজিয়াল্লাহু আনহুর উত্তরসূরী। প্রাথমিক শিক্ষা সমাপ্ত করেন দাম্মামে। এরপর সৌদিআরবের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চতর পড়াশোনা করেন এবং রিয়াদের বাদশা সউদ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। তাঁর পিএইচডির বিষয় ছিল the Views of Shaykh Al Islam Ibn Taymiæyah on SufismÐ a Compilation and Study.
মুহাম্মদ আরিফির শিক্ষকদের মধ্যে অন্যতম হলেন বিখ্যাত হাদিস বিশারদ শায়খ মুহাম্মদ ইবনে ইসমাইল, শায়খ আবদুল্লাহ ইবনে কুউদ, শায়খ আবদুর রহমান ইবনে নাসের আল বাররাক প্রমুখ। তিনি ইলমে ফেকাহ ও ইলমে তাফসির শিক্ষা করেন শায়খ আবদুল আজিজ ইবনে বাজ রাহ.-এর কাছে। ইবনে বাজ রাহ.’র সুহবতে তিনি প্রায় পনেরো-ষোল বছর থাকার সৌভাগ্য লাভ করেন।
ডক্টর আরিফি জীবনের মূল কাজ হিসেবে বেছে নিয়েছেন ‘দাওয়াহ ইলাল্লাহকে। এই লক্ষ্যে তিনি বিভিন্ন স্থানে বক্তৃতা করে থাকেন। এরপরও তিনি রাজধানী রিয়াদের বাদশা সউদ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর এবং আল বাওয়ারদি জামে মসজিদের খতিব। শুক্রবার জুমআর সময় তাঁর মসজিদের তিল ধারণের ঠাই থাকে না।
ডক্টর আরিফি দাওয়াহ বিষয়ক বিভিন্ন সংগঠনের সদস্য। একইভাবে তিনি আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ইসলামি অর্গানাইজেশনেরও মেম্বার। এ সূত্রে রাবেতা আলমে ইসলামি ও বিশ্বমুসলিম উলামা ঐক্য পরিষদে তাঁর সদস্যপদ বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।
সুসাহিত্যিক ডক্টর আরিফি একজন সুবক্তাও। তাঁর বক্তৃতার কয়েক ডজন অডিও-ভিডিও ক্যাসেট বাজারে পাওয়া যায় এবং সেগুলো থেকে মুসলিম সমাজ অনেক উপকৃত হচ্ছে। মাত্র চুয়াল্লিশ বছর বয়স্ক এই বিজ্ঞ আলেম প্রায় ত্রিশটি পুস্তক রচনা করেছেন। সেগুলোর প্রত্যেকটি বিক্রির বেলায় রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। দুনিয়ার অনেক ভাষায় তার বয়ান ও বইয়ে অনূদিত কপিও রেকর্ড পরিমাণ বিক্রি হয়। আমরা শায়খের সুস্বাস্থ ও দীর্ঘায়ূ কামনা করি।